শিরোনাম :
যশোরের শার্শায় যৌতুকের টাকা দাবীকে কেন্দ্র করে জামাইয়ের হাতে শ্বশুর খুন বেনাপোল দিয়ে ৩ বছর পর ২০ বাংলাদেশি কিশোর-কিশোরী ভারত থেকে দেশে ফেরত। র‌্যাবের অভিযানে ৬৭ বোতল ফেন্সিডিলসহ দুইজন আটক বিএনপি’র কোন নেতার সম্পৃক্ততা থাকতে পারে না আওয়ামী লীগের কমিটিতে – পূজামন্ডপ পরিদর্শনে এমপি হোসনে আরা বিলুপ্ত প্রায় তাঁত শিল্প নবাগত ইউএনওকে ইসলামপুরে বরণ কালকিনিতে তৌহিদী জনতার সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, তদন্ত ওসিসহ আহত-৪ আ’লীগের দলীয় মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জয়পুরহাটে দুই ইউপিতে পরির্বতন মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে পলাশবাড়ীতে মানববন্ধন মধুপুরে ব্রীজ থেকে এক ভ্যান চালকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

শেখ রাসেল দিবস পালনের নির্দেশনায় ‘নেই কর্মসূচি’

রিপোর্টিং,ডাসার(মাদারীপুর) প্রতিনিধি ঃ সরকার প্রতি বছরের ১৮ অক্টোবরকে ‘শেখ রাসেল দিবস’ ঘোষণা করেছে। এ দিনটি দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে পালন করার নির্দেশনা দেওয়া হলেও কর্মসূচি কী হবে, সে বিষয়ে কোনো দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়নি। এছাড়া দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ১১ থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত দুর্গাপূজার ছুটি হওয়ায় দিবসটি পালন নিয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) থেকে একটি নির্দেশনা জারির মাধ্যমে প্রতি বছরের ১৮ অক্টোবর ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালন করতে বলা হয়েছে।

মাউশির নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সরকার প্রতিবছর ১৮ অক্টোবর এ দিবস পালন করবে। শেখ রাসেল দিবস পালন/উদযাপনের জন্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস পালন সংক্রান্ত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ২৭ সেপ্টেম্বরের এক পরিপত্রের ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত দিবস হিসেবে অন্তর্ভুক্তকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ সিদ্ধান্ত প্রতিপালনের জন্য সব দপ্তর ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে।

অত্র উপজেলায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকদের অভিযোগ, দেশে প্রথমবারের মতো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল দিবস পালন করতে নির্দেশনা দেওয়া হলেও পূজার ছুটিকালীন কীভাবে দিবসটি পালন হবে, এর কর্মসূচি কী হবে, সে বিষয়ে কোনো গাইডলাইন দেওয়া হয়নি। তার ওপর ১১ থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত দুর্গাপূজার ছুটি থাকবে, ছুটিতে অধিকাংশ শিক্ষক-শিক্ষার্থী বিভিন্ন স্থানে বেড়াতে যাবে। এ কারণে আগামী ১৮ অক্টোবর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল দিবস পালন করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

শিক্ষকরা বলছেন, দিবসটিকে ঘিরে মাউশির সংশ্লিষ্টদের গুরুত্ব না থাকায় এ ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তাদের খামখেয়ালিপনার কারণে এমন নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এ দিবসটি কীভাবে পালন করা হবে, সে বিষয়ে দ্রুত গাইডলাইন প্রকাশের দাবি জানান তারা। শেখ রাসেল দিবস স্কুল-কলেজে পালন করতে বলা হলেও কীভাবে সেটি পালন করা হবে, সে বিষয়ে কোনো দিকনির্দেশনা নেই। এটি খুবই দুঃখজনক, আমরা এর নিন্দা জানাই।

তিনি বলেন, ১১ থেকে ২০ অক্টোবর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পূজার ছুটি থাকবে, এ সময় কাউকে ডেকেও পাওয়া যাবে না। আগে থেকে এ বিষয়ে গাইডলাইন দেওয়া না হলে স্কুল-কলেজে শেখ রাসেল দিবস পালন করা কঠিন হয়ে পড়বে। এ দিবসটিকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তর অবহেলার চোখে দেখছে। এ কারণে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন শিক্ষকরা। দ্রুত এ দিবসের কর্মসূচি ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন তারা।

চ্যানেল বাংলা লাইভ টিভি

নতুন রুপে নিয়োগপত্র

A House of M.R.Multi-Media Ltd
Design & Development By ThemesBazar.Com