শিরোনাম :
স্বাধীনতার ৫০ বছরে গড়ে ওঠেনি দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোলে একটি উন্নতমানের হাসপাতাল বেনাপোলে ভারতীয় গাঁজাসহ গ্রেফতার ১ বেনাপোল বন্দরে আটকে আছে শত শত পণ্য বোঝাই ট্রাক, যানজটে নাকাল পাসপোর্ট যাত্রীরা জনগণকে বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার আহবান প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে কারিগরি শিক্ষকদের বেনাপোল স্থলবন্দরে সন্ধ্যার পর পচনশীল পণ্যের শুল্কায়ন বন্ধ শার্শায় চলছে স্কুলের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ : শিক্ষার্থীদের মাঝে আনন্দ যশোরের নাভারণ ক্লিনিক থেকে ২ দিনের শিশু চুরি প্রেসক্লাব অব ইন্ডিয়ায় ‘বঙ্গবন্ধু মিডিয়া সেন্টার’ উদ্বোধন করলেন তথ্যমন্ত্রী কোভিড-১৯ এর ২য় ডোজ গণটিকা দান কর্মসূচি শুরু

বেনাপোল দিয়ে ভারত ফেরত যাত্রীদের জাল কাগজ দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দিচ্ছে সিন্ডিকেট চক্র

রির্পোটিং,শার্শা-যশোর প্রতিনিধি ঃ যশোর জেলার বেনাপোল আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন দিয়ে ভারত থেকে আসা বাংলাদেশি পাসপোর্টযাত্রীদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে না পাঠিয়ে কাগজপত্র জাল করে বাড়িতে পাঠিয়ে (হোম কোয়ারেন্টাইনে) দিচ্ছে একটি সিন্ডিকেট চক্র। এ ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয়েছে চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন স্বাস্থ্য বিভাগে।

মীরা রানী সাহা, পাসপোর্ট নং বি/এন-০৬৩৩৯২৫ নামে এক যাত্রীর কাছ থেকে ভূয়া সিলসহ একটি জাল রেফারেল ফরম (ভারত থেকে আসা যাত্রীদের তথ্য প্রদান ফরম) উদ্ধার করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা। এ সময় সিন্ডিকেটের সদস্যরা পালিয়ে যায়। তবে এ সিন্ডিকেট সদস্যদের সাথে চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের স্বাস্থ্য বিভাগে কর্মরত স্বাস্থ্যকর্মী হাসানুজ্জামান জড়িত থাকতে পারে বলে অনেকেই জানিয়েছেন। তাদের দাবি যদি স্বাস্থ্য কর্মী হাসানুজ্জামানকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় তাহলে বেরিয়ে আসবে মূল রহস্য।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে অনেকেই বলেন, ভারত থেকে আসা পাসপোর্টযাত্রীদের ডাবল টিকা, ক্যান্সার, কিডনি রোগীর ছাড়া যে সমস্ত রোগীদের ডাবল টিকা দেওয়া নেই তাদের অনেকের কাছ থেকে একটি সিন্ডিকেট চক্র ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা নিয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীদের সহযোগিতায় রেফারেল ফরম জাল করে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে না পাঠিয়ে যাত্রীদের হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। এদিকে স্বাস্থ্য কর্মী হাসানুজ্জামানকে প্রায় ৬ মাস আগে চেকপোস্ট থেকে বদলী করা হলেও তাকে চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায়। এ সময় তার সহযোগি হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন ডাঃ আবু তাহের, স্বাস্থ্যকর্মী মাহবুব ও প্রমিলা।

এ ব্যাপারে ডাঃ আবু তাহের জানান শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলীফ রেজা স্যার ইমিগ্রেশনে এসে পাসপোর্টযাত্রী মীরা রানী সাহার কাছ থেকে জাল রেফারেল ফরম উদ্ধার করেন। এ জাল সনদে সিল ও স্বাক্ষরের সাথে আমাদের স্বাক্ষরের কোন মিল নেই। তবে ধারণা করা হচ্ছে সনদপত্রটি বাহিরে থেকে ফটোকপি করা হয় সেখান থেকেও জাল হতে পারে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ ইউসুফ আলী জানান, চেকপোস্টে জাল সনদপত্রের বিষয় আমি জানি না, তবে যাত্রীদের কাছে কি ভাবে জাল সনদপত্র আসছে সেটা তদন্ত করে দেখা হবে।

এ বিষয়ে শার্শা উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা জানান, এক পাসপোর্ট যাত্রীর কাছ থেকে স্বাস্থ্য বিভাগের একটি জাল সিল সংযুক্ত রেফারেল ফরম (সনদপত্র) জব্দ করা হয়েছে। জাল সনদপত্র কি ভাবে যাত্রীরা পেল বিষয়টি স্বাস্থ্য বিভাগের সাথে আলোচনা করে তদন্ত করে দেখা হবে।

চ্যানেল বাংলা লাইভ টিভি

শিঘ্রই আসছে নতুন রুপে নিয়োগপত্র

A House of M.R.Multi-Media Ltd
Design & Development By ThemesBazar.Com